গোধূলি বিদায়

গোধূলি বিদায় সাগর তীরে / দূর নীলিমায় জোছনা ঘিরে

সুপ্ত সুখের পরশও বিলায় / অনুভবের স্নিগ্ধ ছোঁয়ায়

প্রনয় পিয়াশ জেগে ওঠে / মৌন মনের কল্পনাতে

স্বপ্নে এ মন ভরিয়ে রাখে / মাতাল হওয়া স্বর্ণ সুখে

স্মৃতির ছায়ার ইশারাতে / একাকি আমি যাই থেমে

হৃদয় মেঘে শাওনও ডাকে / অশান্ত দুচোখ তোমায় খোঁজে


কাল সারারাত

কাল সারারাত / আমি তোমায় মনে এঁকেছি

আর তুমি ছাড়া আমার জীবন / কাটবে ভেবে কেঁদেছি

ব্যথা দিয়ে ঢেকেছ আশা / দুখে সাজিয়েছ ভালবাসা

হৃদয় বীণার তার ছিরেছো / দূরে সরে গিয়ে মোরে ভুলেছ

শুরুতেই হয়েছে যা শেষ / রয়ে গ্যাছে তবু তার রেশ

মমতায় গড়েছিলে যে বাঁধন / কোন ভুলে ভেঙ্গে দিলে সে স্বপন


খোদা তোমায়

খোদা তোমায় ডাকবো যখন / মন দুনিয়াটা বড় অচিন তখন

আইব না দিন যাইব এমন / শুধু হাসি খেলায় কাটবনা সাধের জনম

আড়াই হাতের কাপড় মুইরা / রওনা হইব কান্ধে কইরা

আড়াই হাতের কাপড় মুইরা / রওনা হইব কান্ধে কইরা

মুসুল্লিরা পইড়া দোয়াগো / শুয়াই দিবো অন্ধকার ঘরে

কোরান বানী স্মরণ কইরা / ঈমানটারে শক্ত করো

কোরান বানী স্মরণ কইরা / ঈমানটারে শক্ত করো

রাসুল পথের পথিক হইয়াগো / আখেরাতের পথ তুমি ধরো


সূর্য তুমি নিয়োনা বিদায়

সূর্য তুমি নিয়োনা বিদায় / সন্ধ্যাতারার আহ্বানে
মেঘ কাঁদবে একা হয়ে / শুধু বরষা দিয়ে, শুধু বরষা দিয়ে

তোমার প্রভাত পরশে যদি / স্মৃতির ভোরে দেখি স্বরনালী রোদ
তবে কি তুমি ঢাকবে আকাশ / বিষাদ ঘেরা আবেশ দিয়ে
মেঘ কাঁদবে একা হয়ে / শুধু বরষা দিয়ে, শুধু বরষা দিয়ে

আঁধার তুমি দিয়না সাড়া / অস্ত রাঙা আভাস পেয়ে
অরণ্য যে গভীর হবে / সবুজ তাই হারাবে বলে
মেঘ কাঁদবে একা হয়ে / শুধু বরষা দিয়ে, শুধু বরষা দিয়ে


তুমি ছিলে কাল রাতে

তুমি ছিলে কাল রাতে জোছনার সাথী / নিয়েছিলে মনখানি দিয়ে দুটি আঁখি

হাত রেখে দুটি হাতে দিয়েছিলে কথা / এ জীবনে মোর প্রানে দেবেনা তো ব্যাথা

সব কথা ভুলে আজ তুমি চলে গেলে / কি ছিল তোমার মনে নাই বলে গেলে

দিয়েছি সজল চোখে তোমারি সুখে / প্রনয় শিশিরটুকু ছিল যা বুকে

ছলনার অনলে এ অন্তর জ্বেলে / স্বপ্নিল ভালবাসা গিয়েছ ভুলে

আশা আজ ব্যাথা হয় / নয়নেরও কোনে

ভাললাগা ভালবাসা রয়ে যায় মনে

স্মৃতির পাবক হয়ে ঘুম ভাঙো রাতে / স্বপ্নে রাখো হাত এ দুটি হাতে

স্বপ্নের রোদে আমি পেয়েছি যে ভোর / স্মৃতির মেঘে তুমি ভাঙলে সে ঘোর

সৌ্রভে রূপ নিলে / ফুটলে তুমি ফুলে

কাঁটা হয়ে ভেঙ্গে দিলে জীবনের কূল


ছোটবেলায় হাত ধইরা

ছোটবেলায় হাত ধইরা কইসিলো মোর মা বাপ

পড়ালেখা না করলে করবা পরে অনুতাপ

কোথায় গেল মনের আশা কোথায় আমার মা বাপ

পড়ালেখা শিখা এখন করতাসি যে অনুতাপ

পড়ালেখার পাট চুকাইয়া যখন আমি চাকরী চাই

চোখে বাধে NO VACANCY কোনখানেই চাকরী নাই

চাকরী আমি পাইনা কারন আমার ভালো BACKING নাই

শিক্ষাগত যোগ্যতার আজ কোনখানেই দাম নাই

** কোথায় গেল মনের আশা কোথায় আমার মা বাপ

 পড়ালেখা শিখা এখন করতাসি যে অনুতাপ

সবাই বলে ছাত্ররা যে দেশের অদূর ভবিষ্যৎ

ছাত্রজীবন শেষ কইরা দেই যে এখন নাকে খৎ

জীবন আমার কাটে এখন গাঁজার টানে আকাশে

বিদ্যাগুলি ওড়াই গাঁজায় বিদ্যা ওড়ে বাতাসে